Fiverr Tips Bangla Tutorial - How to increase Fiverr sell and Gig Orders

How to earn online $5 job is $45 from Fiverr Client – Fiverr Bangla Tips

আজকের এই ভিডিওতে আমি কিছু টিপস শেয়ার করব আশাকরি এর আগে কখনও শোনেন নি যদি আপনি টিপসগুলো সুন্দরভাবে মানতে পারেন তাহলে আপনার সফলতা কেউ আটকাতে পারবেনা গ্যারান্টি

গত দশ এগারো বছরে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের অসংখ্য অভিজ্ঞতা রয়েছে তার মধ্য থেকে সাম্প্রতিক সময়ের ছোট্ট একটি অভিজ্ঞতা দিয়ে শুরু করবো , আশাকরি এখান থেকে অনেক কিছু শেখার আছে

গত পরশুদিন পাঁচ ডলারের একটি কাজ 10 ডলার করতে চেয়েছিলাম অথচ Client নিজে থেকে 35 ডলারের অর্ডার করলো । আজকে সেই কাজটি জমা দিয়েছি । এত খুশি হয়েছেন যে ফাইভ স্টার রিভিউ সাথে 10 ডলার বকশিশ দিয়ে গেলেন । এবং তিনি বলে গেলেন তিনি আমার সঙ্গে আবারও কাজ করবেন । আমিও বেশ খুশি হয়ে অনেকগুলো লাভ ইমোজি সেন্ড করে দিলাম । আমি তো টাকা পয়সা দিতে পারব না তাই ফ্রিতে ভালোবাসা দিয়ে দিলাম ।
 
কাজটি ছিল ইউটিউব চ্যানেলের কভার ডিজাইন করা ।
বিশেষ দ্রষ্টব্য: নিজের আর্নিং দেখানোর জন্য পোস্টটি করছি না ।এখানে অনেকেই আছেন একদম নতুন । তারা যেন উৎসাহ পান সেই উদ্দেশ্যে দেয়া ।
 
এখান থেকে অনেক কিছু শেখার আছে
 
প্রথম – আপনি যত কম দামে কাজ করতে চাইবেন ক্লায়েন্ট আপনাকে ততো কম মানের ফ্রিল্যান্সার মনে করবেন ।
 
আবার অনেক বেশি চাইবেন তো ক্লায়েন্ট এমন দৌড় দিবে আর জীবনে পিছন ফিরে তাকাবে না ।
 
কাজেই কাজের ব্যাপারে সব সময় ক্লায়েন্টকে প্রাধান্য দেন । বাজেটের ব্যাপারে তাকে ছেড়ে দেন, তিনি যাতে নিঃসংকোচে বলতে পারে তার বাজেট কত ।
 
আপনি শুধু বোঝার চেষ্টা করেন কাজের প্রতি তার রুচিবোধ এবং খরচ করার মানসিকতা কেমন । তবে তিনি যে মানসিকতার লোক হোক না কেন কাজের ব্যাপারে আপনি আপনার সেরাটি দেয়ার চেষ্টা করুন বাজেট যত অল্প হোক আর বেশি হোক।
 
দ্বিতীয়তঃ যেই ক্লায়েন্টের সঙ্গে একবার কাজ করবেন, এমনভাবে কাজ করবেন, যাতে আপনি তার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি কাজ করতে পারেন । অর্থাৎ পরবর্তীতে যেন আপনাকে আবার খুঁজে নেয় । প্রথম বাজেট যতই কম হোক না কেন, আপনার কাজের মান যদি ভাল থাকে পরবর্তীতে আপনাকে চাইতে হবে না নিজে থেকেই অনেক বেশি দিবে।
 
তৃতীয়তঃ আপনি যদি অনেক ভালো কাজ করেন এবং ক্লায়েন্ট যদি তারপরও খুব বাজে ভাবে বলে কাজ ভাল হয়নি অথবা রেটিং খারাপ দেয় অথবা আপনার সঙ্গে রাগ দেখায়। তবুও তাঁর সঙ্গে খুবই মিষ্টি সুরে কথা বলুন । ভুলেও রাগ দেখানো যাবে না কারণ ক্লাইন্ট হচ্ছে লক্ষী।
 
চতুর্থতঃ প্রতিবার কাজ জমা দেয়ার সময় সুন্দর করে বলুন । আশা করি আমার কাজটি আপনার ভালো লেগেছে । যদি ভালো না লাগে অথবা আবারও ঠিক করে দিতে হয় বা নতুন করে করতে হয় তবে বিনা সংকোচে আমাকে বলবেন । আমি পুনরায় করে দেয়ার চেষ্টা করব। কারণ ক্লায়েন্ট সেটিসফেকশন ইজ মাই ফার্স্ট ডিউটি ।
 
যেহেতু টাকা খরচ করে ক্লায়েন্ট আপনাকে অর্ডার করেছে এবং আপনার কাজ ক্লায়েন্টের পছন্দ নাও হতে পারে । এইজন্য আপনাকে ওয়ান স্টার রেটিং দিতে পারে এটা সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে । তাই বলে ক্লায়েন্টকে ওয়ান স্টার রেটিং দেয়া যাবেনা । সব সময় ফাইভ স্টার দিন এবং তার প্রশংসা করুন । আপনার কাজ ভালো হলে পুনরায় আসবে আপনার কাছে কাজ করাতে।
 
পঞ্চমতঃ কোন কাজ শুরু করার পূর্বে কাজ সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে নিন ক্লায়েন্টের কাছ থেকে। তিনি কি চাচ্ছেন সেটা ভালোভাবে বুঝতে চেষ্টা করুন । না বুঝলে বারবার জিজ্ঞেস করেন । যতক্ষণ ক্লিয়ার হবেন না ততক্ষণ জানতে চান । তাতে ক্লায়েন্ট বিরক্ত হোক সমস্যা নেই কিন্তু তাড়াহুড়ো করে কাজ করতে যাবেন না । এর ফলে কাজ তো ভালো করতেই পাবেন না । সাথে একটা খারাপ রিভিউ পাওয়ার চান্স রয়েছে সাথে অর্ডার ক্যানসেল।
 
ষষ্ঠ: ডেলিভারি ফাইল গুলো খুব সুন্দর করে সাজাবেন
যেমন Folder Name:
  • Main Files
  • Source Files
  • Mockup Files
  • Bonus Files
বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন রকম ফোল্ডার হতে পারে তবে এভাবে সাজিয়ে Zip করে দিবেন । 
মনে রাখবেন : – অর্ডার যত কম বাজেটের হোক না কেন যখন ডেলিভারি দিবেন, কিছু না কিছু রিলেটেড বোনাস দেয়ার চেষ্টা করবেন । 

 

 

Hello, I'm Kanay Lal. I'm a professional Freelancer as a Graphics Designer, Web Designer and Online Marketer since 2011.

Share

Leave a Comment

%d bloggers like this: